সিলেট ০২:১৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
পবিত্র রমজান মাসে নিয়মিত রোজা রাখার কারণে শরীরে কিছু জাদুকরী পরিবর্তন নিয়ে আসে।

রোজা শরীরের যেসব জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায়

ক্লিক সিলেট ডেস্ক
  • প্রকাশ: ০৬:৫৩:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪
  • / ৩০ বার পড়া হয়েছে
রোজা শরীরের যেসব জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায়

বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ প্রতিবছর পবিত্র রমজান মাসে মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তাআলার অনুগ্রহ লাভের জন্য ধর্মীয় ইবাদত রোজা পালন করে থাকেন।

 

আসুন সে পরিবর্তনগুলো একে একে জেনে নিই।

 

> রোজা থাকলে দিনের বেশিরভাগ সময় না খেয়ে থাকতে হয়। এতে আমাদের শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট ও চর্বি কমে যায়।

শরীরে জমে থাকা ক্ষতিকারক টক্সিন কিডনির মাধ্যমে শরীর থেকে বের হওয়ার সুযোগ ঘটে রোজার মাধ্যমে। তাই শরীরকে বিষমুক্ত করার একটি কার্যকরী উপায় হলো রোজা।

> রমজানে নিয়মিত রোজা রাখার ফলে  স্বাস্থ্যসম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যা যেমন: উচ্চ কোলেস্টেরল, হৃদ্‌রোগ ও স্থূলতা প্রতিরোধ করা সম্ভব।

> তাই নিয়মিত রোজা রাখার ফলে মানসিক প্রশান্তি অনুভব করা যায়। এ সময় স্ট্রেস হরমোনের নিঃসরণ কমে যায়, যা ব্রেনের কর্মক্ষমতাকে অনেকটাই বাড়িয়ে তোলে।

> রোজা রাখলে সঠিক সময়ে সেহরি ও ইফতার করতে হয়। এ নিয়মানুবর্তিতা শরীরের অলসতা কাটাতে সাহায্য করে।

শরীরের দীর্ঘস্থায়ী প্রদাহ নিয়ন্ত্রণের জন্য শারীরিক ক্ষমতা বাড়ে।

রোজা রাখার অভ্যাস সরাসরি অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমকে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে। এতে শরীরের সার্কাডিয়ান রিদম ও বিভিন্ন অনুতে সংকেত পৌঁছানোর ক্ষমতা বাড়ে।

> নিয়ম ও সময় অনুযায়ী কাজ করার অভ্যাস শরীরের সচলতা বাড়ায়। নামাজ পড়ার অভ্যাসে ওজু করার মাধ্যমে শরীর সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে। তাই ত্বকের সৌন্দর্য ও তারুণ্য ধরে রাখার ক্ষেত্রেও রোজা জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায় শরীরে।

সংবাদটি ভালো লাগলে স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

পবিত্র রমজান মাসে নিয়মিত রোজা রাখার কারণে শরীরে কিছু জাদুকরী পরিবর্তন নিয়ে আসে।

রোজা শরীরের যেসব জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায়

প্রকাশ: ০৬:৫৩:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪
রোজা শরীরের যেসব জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায়

বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ প্রতিবছর পবিত্র রমজান মাসে মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তাআলার অনুগ্রহ লাভের জন্য ধর্মীয় ইবাদত রোজা পালন করে থাকেন।

 

আসুন সে পরিবর্তনগুলো একে একে জেনে নিই।

 

> রোজা থাকলে দিনের বেশিরভাগ সময় না খেয়ে থাকতে হয়। এতে আমাদের শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট ও চর্বি কমে যায়।

শরীরে জমে থাকা ক্ষতিকারক টক্সিন কিডনির মাধ্যমে শরীর থেকে বের হওয়ার সুযোগ ঘটে রোজার মাধ্যমে। তাই শরীরকে বিষমুক্ত করার একটি কার্যকরী উপায় হলো রোজা।

> রমজানে নিয়মিত রোজা রাখার ফলে  স্বাস্থ্যসম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যা যেমন: উচ্চ কোলেস্টেরল, হৃদ্‌রোগ ও স্থূলতা প্রতিরোধ করা সম্ভব।

> তাই নিয়মিত রোজা রাখার ফলে মানসিক প্রশান্তি অনুভব করা যায়। এ সময় স্ট্রেস হরমোনের নিঃসরণ কমে যায়, যা ব্রেনের কর্মক্ষমতাকে অনেকটাই বাড়িয়ে তোলে।

> রোজা রাখলে সঠিক সময়ে সেহরি ও ইফতার করতে হয়। এ নিয়মানুবর্তিতা শরীরের অলসতা কাটাতে সাহায্য করে।

শরীরের দীর্ঘস্থায়ী প্রদাহ নিয়ন্ত্রণের জন্য শারীরিক ক্ষমতা বাড়ে।

রোজা রাখার অভ্যাস সরাসরি অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমকে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে। এতে শরীরের সার্কাডিয়ান রিদম ও বিভিন্ন অনুতে সংকেত পৌঁছানোর ক্ষমতা বাড়ে।

> নিয়ম ও সময় অনুযায়ী কাজ করার অভ্যাস শরীরের সচলতা বাড়ায়। নামাজ পড়ার অভ্যাসে ওজু করার মাধ্যমে শরীর সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে। তাই ত্বকের সৌন্দর্য ও তারুণ্য ধরে রাখার ক্ষেত্রেও রোজা জাদুকরী পরিবর্তন ঘটায় শরীরে।